গ্রাফ থিওরি এবং একটি রুপকথার গল্প

পোস্টের শুরু এক গল্প দিয়ে যেখানে এক রাজ্যে এক রাজার কোন সন্তান ছিল না । রাজার মনে খুব দুঃখ। রাজা আর রাণী সারাদিন মন খারাপ করে থাকে। এক দিন ভাগ্য দেবতা তাদের প্রতি প্রসন্ন হলেন। রাণীর গর্ভে সন্তান আসলো। কিন্তু গোল বাধলো ৯ মাস পর যখন সন্তান প্রসবের সময় আসলো রাণী এক মহা বিপদে পড়লেন রাজা সবাইকে বললেন যে যে কোন মুল্যে রাণীকে সুস্থ করে তুলতে হবে সবাই রাজার কথা মত রাণীর জন্য দাওয়াই খুজতে বের হল। সেখানে রাজার সেনাপতিরা এক অদ্ভুত সূর্যমুখী ফুলের সন্ধান পেলেন যেখানে ফুলটি দিনের রাতের বেলায়ও জ্বলজ্বল করে। সেনাপতি সেই ফুল রাণীর জন্য নিয়ে এলেন। এবং সেই ফুল ধোয়া পানি খেয়ে রাণী এক সুন্দর ফুটফুটে কন্যা সন্তান জন্ম দিলেন। যার চুল ছিল সোনালী আর সেই চুল ও কেউ গান গাইলে জ্বলজ্বল করতো। এখানে সেই ফুল ছিল এক ডাইনি বুড়ির দখলে যে তার ফুল হারিয়ে পাগল হয়ে গিয়েছিল। কারণ সেই ফুলের ছিল এক আশ্চর্য গুন যেখানে সেই ফুল কোন অসুস্থ মানুষকে সুস্থ করতে পারতো আর সেই ফুলের গুণে সেই ডাইনি আর যৌবন ধরে রাখতে পেরেছিল। ডাইনির নজর ছিল সেই রাজকন্যার উপর আর তাই এক রাতে সে সেই রাজকন্যাকে চুরি করে এক উচু টাওয়ারের উপর লুকিয়ে রাখলো আর তাকে বলল যে বাইরের দুনিয়া খুব ভয়ংকর সেখানে মোটেও যাওয়া যাবের না। আর সে নিজে তার মা সেজে তারসব কাজ করে দিত। ধীরে ধীরে সেই রাজকন্যা সেই ডাইনিকেই তার মা জেনে বড় হল আর জানল যে বাইরের দুনিয়া তার জন্য এক বিভিষীকাময় জায়গা। আমাদের সবার অবস্থা সেই রাজকন্যার মত। আমাদের ভেতরে এক ডাইনি বুড়ি সব সময় যে গ্রাফ থিওরি হল এক বিভিষীকাময় জায়গা আর আমরা ভয়তে সেদিকে ফিরেও তাকাই না। Back to the story: ধীরে ধীরে রাজকন্যার বয়স...